ভূগোলের কিছু প্রশ্ন



১।পূর্বঘাট পাহাড়ের অপর নাম কী – মহেন্দ্ৰগিরি।
২। পশ্চিম পাহাড়ের অপর নাম কী – সহ্যাদ্রি পর্বত।
৩। নীলগিরি পার্বত্য অঞ্চলের আদিবাসীদের কী বলে – টোডা।
৪। গর্জনকোন শ্রেণির বৃক্ষ – পাতাঝরা বা, পর্ণমােচী বৃক্ষ।
৫।তিব্বতে যাওয়ার জন্য কোন গিরিপথটি সিকিম রাজ্যে আছে— নাথুলা।
৬। রাজস্থানের সমান্তরাল বালিয়াড়ির মধ্যবর্তী লম্বা হ্রদকে কী বলা হয় – ধান্দ।
৭।তুঙ্গভদ্রা বাঁধ প্রকল্পটি কোন রাজ্যে আছে-
কর্ণাটকে।
৮।ক্ৰান্তীয় চিরহরিৎ অরণ্য কোন রাজ্যে নেই – হিমাচল প্রদেশে।
৯। নােয়াভেলি তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র কোন রাজ্যে আছে – তামিলনাড়ু।
১০। পশ্চিমঘাট পর্বতমালার সর্বোচ্চ শৃঙ্গ কোনটি – কোদাইকানাল।
১১। ভারতের কোথায় সােনা ও হিরের খনি আছে – পান্না ও কোলার।
১২। ভারতের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার কেন্দ্রটি কোন উপকূলে আছে – পূর্ব উপকূলে।
১৩। পশ্চিমবঙ্গের কোন জেলার একটি অঞ্চল দিয়ারানামে পরিচিত – মালদহ।
১৪। কলকাতা শহর কত দ্রাঘিমায় অবস্থিত।
– ৮৮/, পূর্ব।
১৫। সুবর্ণসিরি ও ধানসিরি কোন নদীর উপনদী – ব্ৰহ্মপুত্ৰ।
১৬।আত্ৰেয়ী বা, আত্রাই নদীর তীরে আছে। কোন শহর – বালুরঘাট।
১৭। গােরগারু কোন পাহাড়ের শৃঙ্গ – অযােধ্যা।
১৮। হর মন্দির কে প্রতিষ্ঠা করেন—গুরু অর্জন।
১৯। জনসংখ্যার বিচারে পশ্চিমবঙ্গের স্থান কত – চতুর্থ।
২০। বিহারীনাথ পাহাড় আছে পশ্চিমবঙ্গের কোন জেলায় – বাঁকুড়া।
২১। ল্যান্ড অফ হােয়াইট অর্কিড কাকে বলে – কার্শিয়াং।
২২।পাণ্ডুয়ার আদিনা মসজিদ পশ্চিমবঙ্গের কোন জেলায় – মালদহ।
২৪। তাের্সা নদীর উৎপত্তি কোথায় – চুম্বি উপত্যকা।
২৫। পূর্বঘাট পর্বত কোন ধরণের পর্বত – ফয়জাত।
২৬। হুভু জলপ্রপাত কোন নদী থেকে সৃষ্ট – সুবর্ণরেখা।
২৭। সিয়াচেন হিমবাহ কোন পর্বতমালার অংশ – কারাকোরাম।
২৮। রাজস্থানের মরুস্থলীতে চলন্ত বালিয়াড়িকে কী বলে – থ্রিয়ান।
২৯। ভারত ও ভূটানের সীমান্ত শহরের নাম কী – ফুন্টশলিং।
৩০। নর্মদা নদী কোন পর্বত থেকে উৎপন্ন হয়েছে – মহাকাল ।
৩১। সাতপুরা পর্বতের সর্বোচ্চ শৃঙ্গের নাম কী – ধূপগড়।
৩২। কোলার হ্রদ কোন দুটি নদীর সংযােগ স্থলে আছে – কৃষা ও গােদাবরী।
৩৩। ভেম্বানাদ উপহ্রদ আছে কোন উপকূলে ।
– মালাবার।
৩৪। গঙ্গার ডান তীরের উপনদী কোনটি
— শোন।
৩৫। পাংগাং হ্রদ আছে কোথায় – লাদাখ ।
৩৬। জাতীয় বননীতি কত সালে গৃহীত হয় – ১৯৫২ সালে।
৩৭।পডসল মৃত্তিকা কোন অঞ্চলে দেখা যায় – পশ্চিম হিমালয়।
৩৮। সিন্ধু নদের প্রধান উপনদী কোনটি – শতদ্ৰু
৩৯। প্রাচীন পলি দিয়ে গঠিত মৃত্তিকাকে কী বলে – ভাঙ্গর।
৪০। ভারতের কোন ইস্পাত কারখানার
উৎপাদন ক্ষমতা সর্বাধিক – বােকারাে।
৪১। ভিলাই ইস্পাত কারখানা কোন দেশের সহায়তায় তৈরি হয় – রাশিয়া।।
৪২। ভারতের অভ্র কোথায় সর্বাধিক পাওয়া যায় – বিহার।
৪৩। পামির মালভূমি ভারতের কোন দিকে রয়েছে – উত্তর-পশ্চিম দিকে।
৪৪। শিবালিক পর্বতের উচ্চতা কত – : ৬০০-১,৫০০ মিটার।
৪৫। কোন নদীর ওপর মেত্তুর বাঁধ আছে|
— কাবেরী।।
৪৬।সাতপুরার সর্বোচ্চ শিখর কোনটি- ধূপগড়।
৪৭। সাতপুরার পূর্বাংশ কীনামে পরিচিত – মহাকাল পর্বত।
৪৮। নর্থ ইস্ট ফ্রন্টিয়ার এজেন্সি(NEFA) কোন রাজ্যের পুরনাে নাম – অরুণাচল প্রদেশ।
৪৯। নাঙ্গা পর্বতের উচ্চতা কত – ৮,১২৬
মিটার।
৫০। ভারতে সবচেয়ে বেশি কয়লা মজুত আছে কোন নদীর উপত্যকায় – দামােদর।
৫১। তুঙ্গভদ্ৰা প্ৰকল্প কোন-কোন রাজ্যের । যৌথ উদ্যোগে গড়া – আন্ধ্রা প্রদেশ ও কর্ণাটক।
৫২। ভারতের কোন রাজ্যে প্রথম নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্টতৈরি হয় – মহারাষ্ট্র।
৫৩। কোন পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্র পুরােপুরি দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি – কালপক্কম।
৫৪। কোন রাজ্যে সব থেকে বেশি জলবিদ্যুৎ উৎপাদিত হয় – কৰ্ণাটক।
৫৫। হিনললা জলসেচ প্রকল্প পশ্চিমবঙ্গের কোন জেলায় রয়েছে – বীরভূম।
৫৬। তিস্তা-মহানদীর সংযােজক খাল পশ্চিমবঙ্গের কোন জেলায় আছে – জলপাইগুড়ি।
৫৭। ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ : ওসানােগ্রাফি কোথায় আছে – পানাজি।
৫৮। তালকী – হিমালয়ে অবস্থিত হিমবাহ। জলপুষ্ট হ্রদকে তালবলা হয়।
৫৯। কয়েকটি তলের উদাহরণ দিন – নৈনিতাল, ভীমতাল, ওকুচিয়াতাল, সাততাল, পুনাতাল ইত্যাদি।
৬০। গঙ্গোত্রী হিমবাহের উচ্চতা কত – ৬,৬১৪ মিটার।
৬১। আরাবল্লী পর্বতের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ কোনটি
মাউন্ট আবু।
৬২। বানম কার উপনদী চম্বল নদীর।
৬৩। মধ্য প্রদেশের রাজধানী ভূপাল কোন দুটি নদীর মধ্যে অবস্থিত – বেতােয়া ও ওপাধতী
৬৪। দোদাবেতা ও মাকুর্তি কোন পর্বতে অবস্থিত নীলগিরি।
৬৫। পশ্চিমঘাট পর্বতের উচ্চতম শৃঙ্গগুলির নাম কী – হরিশ্চন্দ্রগড়, মহাবালেশ্বর, কলসুবাই।
৬৬। পশ্চিমঘাট পর্বতের দুটি গিরিপথের নাম। কী – ধলঘাট, ভােরঘাট।
৬৭। দোদাবেতার পাদদেশে কোন বিখ্যাত শৈলশহর অবস্থিত — উদগামণ্ড বাউটি।
৬৮। কোন দুটি পর্বতের মাঝে পালঘাট অবস্থিত — করিমালাই ও পাদগিরিমালাই।।
৬৯। দাক্ষিণাত্যের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ কোনটি – আনাইমুদি।
৭০।কার্ডামাম পাহাড়ের সবচেয়ে দক্ষিণের গিরিপথটির নাম কী – শেঙ্কোটা।
৭১।পশ্চিমবঙ্গের কোথায় উলফ্ৰাম খনিজ পদার্থ পাওয়া যায় – বাঁকুড়া জেলার ঝিলিমিলিতে।
৭২।পশ্চিমবঙ্গের গড় বার্ষিক বৃষ্টিপাতের। পরিমাণ কত – ১৭৫. সেন্টিমিটার।
৭৩। ৪৬। ট্রান্স হিমালয়ে সবচেয়ে উঁচু গিরিশৃঙ্গ কোনটি – লিওপার্গেল।
৭৪। ন্যাপজোন কোথায় দেখতে পাওয়া যায়।
– পশ্চিম হিমালয়ে।

0/Post a Comment/Comments

ভালো লাগলে অবশ্যই মতামত জানান

Stay Conneted

Follow Us